+
সরকারের পরিবর্তন চাই এখনই : ড. কামাল
 সরকারের পরিবর্তন চাই এখনই : ড. কামাল

সরকারের পরিবর্তন চাই এখনই : ড. কামাল

গণফোরাম সভাপতি ও জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের শীর্ষ নেতা ড. কামাল হোসেন বলেছেন, এখনই সরকারের পরিবর্তন চাই। কারণ এ সরকারের প্রতি জনগণের একটুও আস্থা নেই। বুকের পাটা থাকলে নির্বাচন দিয়ে প্রমাণ করুক এ সরকারের প্রতি জনগণের আস্থা আছে। মহান স্বাধীনতা ও জাতীয় দিবস উপলক্ষে বৃহস্পতিবার জাতীয় প্রেস ক্লাবে কৃষক শ্রমিক জনতা লীগ আয়োজিত আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেন। তিনি বলেন, ‘আমি বলছি এ বছরের মধ্যেই নির্বাচন দিন। আপনাদের যদি সৎ সাহস থাকে, বুকের পাটা থাকে এখনই নির্বাচন দিন। সংসদীয় গণতন্ত্রের মধ্যে দুয়েক বছরের মধ্যেও নির্বাচন দেয়া যায়।’

ড. কামাল বলেন, ‘বেশি দিন সময় নিয়ে আন্দোলন হলে দেশের অর্থনীতি ধ্বংস হয়ে যাবে। সুতরাং আন্দোলন ধীরস্থিরভাবে করা চলবে না। সরকার পরিবর্তন এখনই চাই।’ তিনি বলেন, ‘সরকার যে উন্নয়নের কথা বলে তা আয়ুব-ইয়াহিয়াও বলত। তাদের মুখে উন্নয়নের এমন কথা আয়ুব-ইয়াহিয়াকেও ছাড়িয়ে গেছে। বঙ্গবন্ধু তার জীবদ্দশায় আয়ুব-ইয়াহিয়ার মুখে উন্নয়ন শব্দটিকে ঘৃণার চোখে দেখতেন।’ কামাল হোসেন বলেন, ‘৩০ ডিসেম্বর নির্বাচন ছিল না, ওটা একটা কাল্পনিক নির্বাচন ছিল। এখন তথাকথিত সংসদ শুনা যায়। অনেকে সংসদ সংসদ বলেছেন। আমি তো কোনো পার্লামেন্ট আমার চোখের সামনে দেখি না। সংসদ বললেই সংসদ হয় না, নির্বাচিত বললেই নির্বাচিত হয় না।’ তিনি আরও বলেন, ‘যে উন্নয়নের কথা বলা হচ্ছে এ বিষয়ে সরকারকে মুখ খুলতে হবে। কোথা থেকে কীভাবে কত ঋণ নিয়ে এ ধরনের উন্নয়ন করা হচ্ছে। এ ঋণের কারণে জাতির ঘাড়ে কত ঋণের বোঝা পড়বে সে ব্যাপারে উদ্বিগ্ন সবাই।’

 বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেন, সরকারের মুখে বাকশালের প্রসংশা শুনে জনগণ আতঙ্কিত ও উৎকণ্ঠায় আছে। তিনি বলেন, সরকার এখন দেশকে বাকশালের দিকে নিয়ে যাচ্ছে। তিনি বলেন, দেশে গণমাধ্যমের স্বাধীনতা নেই। এমনকি গণমাধ্যম যে স্বাধীন না সে কথাও বলা যাচ্ছে না। কারণ আওয়ামী লীগ একদলীয় শাসন ব্যবস্থা প্রবর্তন করেছে।

তিনি আরও বলেন, ‘সবাই বলে জাতীয় ঐকফ্রন্টে সংকট আছে। কথায় কথায় বিএনপি আর ঐক্যফ্রন্টে সংকটের কথা বলা হয়। তিনি মঞ্চে উপবিষ্ট নেতাদের দেখিয়ে বলেন, ঐক্যফ্রন্ট অছে, থাকবে। আরও বৃহত্তর ঐক্য হবে। মির্জা ফখরুল বলেন, ‘আসুন স্বাধীনতা দিবসের এই দিনে অত্যাচার নির্যাতনের মধ্য দিয়ে যারা একদলীয় শাসন ব্যবস্থা প্রবর্তন করতে চায় তাদের অপসারণ করি। জনগণের ঐক্য সৃষ্টি করে সব দলমত নির্বিশেষে খালেদা জিয়াকে মুক্ত করি।’ জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দল জেএসডি সভাপতি আসম আব্দুর রব বলেন, ৩০ ডিসেম্বর ইউনিফর্মধারী প্রতিষ্ঠান, প্রশাসন এবং সরকার মিলে দেশের স্বাধীনতাকে লুণ্ঠন করেছে। মুক্তিযুদ্ধের চেতনাকে ধ্বংস করে দিয়েছে। নাগরিক ঐক্যের আহ্বায়ক মাহমুদুর রহমান মান্না বলেন, মানুষ ভোট কেন্দ্রে যেতে চায় না। কারণ তারা এ সরকারকে চায় না। তিনি বলেন, জাতিকে এই সরকারের বিরুদ্ধে ঐক্যবদ্ধ হতে হবে।



Published: 2019-03-29 11:35:34