+
মাহমুদউল্লাহ ফেরালেন হেটমায়ারকেও
মাহমুদউল্লাহ ফেরালেন হেটমায়ারকেও

মাহমুদউল্লাহ ফেরালেন হেটমায়ারকেও

টানা দুই বলে উইকেট নিলেন মাহমুদউল্লাহ। অভিজ্ঞ এই অফ স্পিনার গোল্ডেন ডাকের স্বাদ দিলেন শিমরন হেটমায়ারকে।   

 

মাহমুদউল্লাহকে ফ্লিক করতে চেয়েছিলেন বাঁহাতি মিডল অর্ডার ব্যাটসম্যান। ব্যাটে খেলতে পারেননি, বল আঘাত হানে প্যাডে। আম্পায়ার এলবিডব্লিউর আবেদনে সাড়া দিলে রিভিউ নেন হেটমায়ার। বল ট্র্যাকিংয়ে দেখা যায়, বল লাগতো লেগ স্টাম্পে।

 

৯.৩ ওভারে ওয়েস্ট ইন্ডিজের স্কোর ১২২/৪।

  

মাহমুদউল্লাহ থামালেন লুইস ঝড়

 

কিছুতেই কাজ হচ্ছিল না, থামানো যাচ্ছিল না এভিন লুইসকে। বিশেষজ্ঞ বোলাররা সব ব্যর্থ হওয়ার পর মাহমুদউল্লাহকে আক্রমণে আনেন সাকিব আল হাসান। সহ-অধিনায়ক থামালেন বিস্ফোরক ব্যাটিংয়ে দ্রুত এগোনো লুইসকে।

 

অফ স্পিনারকে স্লগ করতে চেয়েছিলেন বাঁহাতি ওপেনার। ব্যাটে খেলতে পারেননি। বল আঘাত হানে অফ স্টাম্পে। বোল্ড হয়ে ফিরে যান ৩৬ বলে ৮ ছক্কা ও ৬ চারে ৮৯ রান করা লুইস।

 

৪৩ বলে উইন্ডিজের একশ

 

এভিন লুইস ঝড়ে মাত্র ৪৩ বলে তিন অঙ্কে গেল ওয়েস্ট ইন্ডিজের সংগ্রহ। ১৯ বলে এসেছিল সফরকারীদের পঞ্চাশ। পঞ্চাশ থেকে একশ রানে যেতে দুটি উইকেট হারালেও খুব একটা কমেনি সফরকারীদের রানের গতি।    

 

৮ ওভার শেষে ওয়েস্ট ইন্ডিজের স্কোর ১০৮/২। লুইস ৭৬ ও রভম্যান পাওয়েল ৪ রানে ব্যাট করছেন।

 

পলকে দ্রুত ফেরালেন মুস্তাফিজ

 

বোলিংয়ে এসে আঘাত হানলেন মুস্তাফিজুর রহমান। প্রমোশন পেয়ে তিনে নামা কিমো পলকে দ্রুত ফেরালেন বাঁহাতি এই পেসার।

 

শর্ট বল পুল করে ছক্কায় উড়াতে পেয়েছিলেন পল। ঠিক মতো টাইমিং করতে পারেননি তিনি। অনেক উপরে উঠে যাওয়া ক্যাচ মুঠোয় জমান আরিফুল হক। ৩ বলে ২ রান করে ফিরেন পল।

 

প্রথম আঘাত সাকিবের

 

আগের ম্যাচে পাঁচ উইকেট নেওয়া সাকিব আল হাসান বোলিংয়ে এসে পেলেন সাফল্য। শেই হোপকে ফিরিয়ে ভাঙলেন দ্রুত এগোনো ওয়েস্ট ইন্ডিজের শুরুর জুটি।

 

বাঁহাতি স্পিনারের স্টাম্পের বল সুইপ করতে চেয়েছিলেন হোপ। একটু ঝুলিয়ে দেওয়া মন্থর বল আগেভাগেই খেলে বোল্ড হয়ে যান ছন্দে থাকা এই ডানহাতি ওপেনার।

 

১২ বলে তিন চার ও এক ছক্কায় ২৩ রান করেন হোপ। তার বিদায়ের সময় ৫ ওভারে ওয়েস্ট ইন্ডিজের স্কোর ৭৬/১।

 

১৮ বলে লুইসের ফিফটি

 

বিস্ফোরক ব্যাটিংয়ে ইনিংসের পঞ্চম ওভারে ফিফটি তুলে নিলেন এভিন লুইস। মাত্র ১৮ বলে বাংলাদেশের বিপক্ষে পেলেন নিজের প্রথম পঞ্চাশ। হাফ সেঞ্চুরি করার পথে পাঁচটি ছক্কা ও তিনটি চার হাঁকান বাঁহাতি এই ওপেনার। 

 

জীবন পেলেন লুইস

 

হাতছাড়া হয়ে গেল বিপজ্জনক এভিন লুইসকে ফেরানোর সুযোগ। মিডউইকেটে বাঁহাতি ওপেনারের ক্যাচ ছাড়লেন আবু হায়দার।

 

অফ স্পিনার মেহেদী হাসান মিরাজের প্রথম ওভারের শেষ বল স্লগ সুইপ করে উড়াতে চেয়েছিলেন লুইস। টাইমিং করতে পারেননি, ক্যাচ যায় সোজা আবু হায়দারের কাছে। কিন্তু ক্যাচ মুঠোয় নিতে পারেননি তিনি। সে সময় ৪৮ রানে ব্যাট করছিলেন লুইস।

 

১৯ বলে উইন্ডিজের ফিফটি

 

এভিন লুইসের বলে উড়ন্ত সূচনা পাওয়া ওয়েস্ট ইন্ডিজের রান পঞ্চাশে গেল মাত্র ১৯ বলে।

 

চতুর্থ ওভারে আক্রমণে আসা মেহেদী হাসান মিরাজকে লং অন দিয়ে চার হাঁকিয়ে স্বাগত জানান হোপ। ৩.১ ওভারে পঞ্চাশ স্পর্শ করে দল ও উদ্বোধনী জুটির রান।

 

আবু হায়দারের ওভারে লুইসের চার ছক্কা

 

বাঁহাতি পেসার আবু হায়দারের ওপর চড়াও হলেন এভিন লুইস। এক ওভারে হাঁকালেন চারটি ছক্কা। এর তিনটি লং অফ দিয়ে, অন্যটি বোলারের মাথার ওপর দিয়ে।

 

একের পর এক হাফ ভলি বল দিয়ে গেলেন আবু হায়দার। এর সুবিধা তুলে নিলেন লুইস। আগের দুই ম্যাচে তেমন কিছু করতে না পারা বিস্ফোরক ব্যাটসম্যান পেয়ে গেলেন দারুণ শুরু।

 

আবু হায়দারের সেই ওভার থেকে এলো ২৭ রান। ৩ ওভার শেষে ওয়েস্ট ইন্ডিজের স্কোর ৪৭/০। লুইস ৩৮ ও শেই হোপ ৬ রানে ব্যাট করছেন।

 

ওয়েস্ট ইন্ডিজের হয়ে রাদারফোর্ডের অভিষেক

 

একটি পরিবর্বতন এনেছে ওয়েস্ট ইন্ডিজ। বাদ পড়েছেন ড্যারেন ব্রাভো। অভিষেক হচ্ছে ২০ বছর বয়সী ব্যাটিং অলরাউন্ডার শেরফান রাদারফোর্ডের।

 

ওয়েস্ট ইন্ডিজ একাদশ: এভিন লুইস, শেই হোপ, শিমরন হেটমায়ার, শেরফান রাদারফোর্ড, নিকোলাস পুরান, রভম্যান পাওয়েল, কার্লোস ব্র্যাথওয়েট, ফ্যাবিয়ান অ্যালেন, কিমো পল, শেলডন কটরেল, ওশান টমাস।

 

অপরিবর্তিত বাংলাদেশ একাদশ

 

টানা তিন ম্যাচ একই একাদশ নিয়ে খেলছে বাংলাদেশ। সিরিজে কোনো ম্যাচ খেলা হলো না রুবেল হোসেন, মোহাম্মদ মিঠুন ও নাজমুল ইসলাম অপুর। 

 

বাংলাদেশ একাদশ: তামিম ইকবাল, লিটন দাস, সৌম্য সরকার, মুশফিকুর রহিম, সাকিব আল হাসান, মাহমুদউল্লাহ, আরিফুল হক, মেহেদী হাসান মিরাজ, মোহাম্মদ সাইফ উদ্দিন, আবু হায়দার, মুস্তাফিজুর রহমান।

 

টস জিতে বোলিংয়ে বাংলাদেশ

 

সিরিজে প্রথমবারের মতো টস জিতলেন সাকিব আল হাসান। বাংলাদেশ অধিনায়ক নিলেন বোলিং। এবার আর শিশিরের মধ্যে বোলিংয়ের চ্যালেঞ্জ নিতে হবে না স্বাগতিক স্পিনারদের।

 

প্রথমবারের মতো সিরিজে ৩ সংস্করণে জেতার আশায় বাংলাদেশ

 

প্রথমবারের মতো কোনো দলকে সিরিজে তিন সংস্করণে হারানোর আশায় মাঠে নামছে বাংলাদেশ। তাদের বিপক্ষে হারের চক্র ভাঙতে শতভাগের বেশি দিয়ে খেলার কথা জানিয়েছে ওয়েস্ট ইন্ডিজ।

 

মিরপুর শের-ই-বাংলা জাতীয় ক্রিকেট স্টেডিয়ামে শনিবার খেলা শুরু হবে বিকেল পাঁচটায়।

 

টেস্ট সিরিজে ওয়েস্ট ইন্ডিজকে হোয়াইটওয়াশ করার পর ওয়ানডে সিরিজ ২-১ ব্যবধানে জেতে বাংলাদেশ। চলতি বছরে নিজেদের সবশেষ ম্যাচ জিতলে ঘরে তুলবে টি-টোয়েন্টি সিরিজও। পাবে এক সিরিজে তিন সংস্করণে জয়ের অনিবর্চনীয় স্বাদ। 

 

বাংলাদেশের কাছে টানা চারটা সিরিজে হারা ওয়েস্ট ইন্ডিজ মরিয়া ঘুরে দাঁড়াতে। পেসার কিমো পল জানান, তৃতীয় টি-টোয়েন্টিতে ১১০ ভাগ দিয়ে খেলবেন তারা। 



Published: 2018-12-22 18:12:38